Computer History in Bengali

কম্পিউটারের ইতিহাস জানার আগে কম্পিউটার সম্পর্কে একটু ধারণা নিই । Computer শব্দটি গ্রিক শব্দ Compute শব্দ থেকে এসেছে । Compute শব্দের অর্থ হল গণনা করা । Computer শব্দের অর্থ গণনাকারী যন্ত্র । মূলতঃ এটি তৈরি করা হয়েছিল গণনার জন্য । কিন্তু বর্তমান অবস্থায় এটি জটিল ও কঠিন হিসাব – নিকাশ ছাড়াও আরাে অনেক কাজে ব্যবহার হচ্ছে Computer । কম্পিউটারের কাজের গতি হিসেব করা হয় ন্যানাে সেকেন্ডে । ন্যানাে সেকেন্ড হল এক সেকেন্ডের একশ কোটি ভাগের একভাগ । ইলেকট্রনিক প্রবাহের মাধ্যমে এটি তার যাবতীয় কার্য সম্পাদন করে । আজকে আমরা জানতে চলেছি Computer history in Bengali।

কম্পিউটার কে আবিষ্কার করেন

ঈশ্বর মানুষ সৃষ্টি করেছেন , দিয়েছেন তাদের বুদ্ধি । মানুষ সাধনা করে তার বুদ্ধির মাধ্যমে বিভন্ন জিনিস আবষ্কার করছে । বর্তমান যুগ কম্পিউটারের যুগ । এখ আপনাকে কেউ যদি জিজ্ঞেস করে কম্পিউটার আবিষ্কার কে করেছেন ? তাহলে আপনি এর উত্তর কি দিবেন ? কারণ আজকের এই কম্পিউটার একজনের হাত ধরে আসেনি । এটি এসেছে অনেক অনেক মানুষ ও প্রতিষ্ঠানের হাত ধরে । এর জন্যই আপনাকের জানতে হবে এর প্রথম দিক থেকে ইতিহাস ।

ইতিহাস আমরা যা জানতে পারি তা হল , প্রায় ৪ হাজার বছর আগে চীনারা গণনা করার জন্য একটি যন্ত্র তৈরি করে । যার নাম ছিল অ্যাবাকাস । এটিই হল পৃথিবীর প্রথম গণনাকারি যন্ত্র । আর এটিই হল বর্তমান কম্পিউটারের পূর্বপূরুষ । মুলতঃ বর্তমান কম্পিউটারের রূপরেখা তৈরি করেন ব্রিটিশ গণিতবিদ চার্লস ব্যাবেজ ‘ । ১৮২২ সালে তিনি লগারিদমসহ গাণিতিক হিসাব নিকাশ অধিক সহজ করার লক্ষ্যে একটি যন্ত্র তৈরি করার পরিকল্পনা হাতে নেন । যন্ত্রটির নাম ছিল “ ডিফারেন্স ইঞ্জিন ( Difference Engine ) . তার এই যন্ত্রটি কিছু সমস্যার কারণে তৈরি করা সম্ভব হয় নি ।

এরও অনেক পরে ১৮৩৩ সালে তিনি আগের সব গণনাকারি যন্ত্রের স্মৃতিভান্ডারের প্রয়ােজনীতা অনুভব করেন । এইজন্য তিনি একটি যন্ত্র তৈরির চিন্তা করেন , যার নাম দেন “ অ্যানালটিক্যাল মেশিন ” । এটির কাজ তিনি শেষ করতে পারেন নি । তার এই মেশিনের ডিজাইনের উপর ভিত্তি করেই আজকের এই কম্পিউটার তৈরি করা হয়েছে । এই জন্যই তাকে কম্পিউটারের আদি পিতা বা জনক বলা হয় । তার পরে লেডি আড্যা আগাষ্টা , ফ্রাঙ্ক বন্ডইউনসহ আরাে এগিয়ে নিয়ে যান চার্লস ব্যাবেজের উক্ত কাজকে ।

১৮৮৭ সালে ডঃ হরম্যান হলেরিথ যুক্তরাষ্ট্রের আদমশুমারির কাজে ব্যবহারের জন্য ইলেকট্রো মেকানিক্যাল ব্যবস্থায় পাঞ্চকার্ডের সমন্বয়ে একটি যন্ত্র আবিষ্কার করেন । এর দ্বারা দ্রুত আদমশুমারির কাজ করা যেতাে । ১৮৯৬ সালে তিনি এ যন্ত্র তৈরির জন্য “ হলেরিথ টেবুলেটিং মেশিন কোম্পানী ” নামে একটি কোম্পানী প্রতিষ্ঠা করেন । পরবর্তীতে আরাে কয়েকটি কোম্পানী প্রতিষ্ঠিত হয় । আর এই কোম্পানীগুলাে একত্রে তৈরি হল বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান “ ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস মেশিন কর্পোরেশন ( IBM ) . ” যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিতের অধ্যাপক হাওয়ার্ড এইচ . আইকেন IBM এর চারজন প্রকোশলীর সহযােগিতা তৈরি করা হয় প্রথম স্বয়ংক্রিয় সাধারণ ইলেকট্রোমেকানিক্যাল ডিজিটাল কম্পিউটার Mark – 1 , ১৯৪৪ সালে । এটি ছিল প্রায় লম্বায় ৫১ ফুট , উচ্চতায় ৮ ফুট । এতে ৭ লক্ষাধিক যন্ত্রপাতির জন্য প্রায় ৫০০ মাইল লম্বা তার ব্যবহার করা হয়েছিল । এর ওজন ছিল ৫ টন , এটি চালু ছিল ১৫ বছর । বর্তমানে এটি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান জাদুঘরে আছে ।

১৯৮৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ জন মউসলি এবং তার ছাত্র প্রেসপার একার্ড মিলে তৈরি করেন প্রথম প্রজন্মের ডিজিটাল কম্পিউটার ENIAC . এটি ছিল অত্যান্ত বড় ও ওজনে ছিল প্রায় ৩০ টন । এটি প্রতি সেকেন্ডে ৫০০০ যােগ বিয়ােগ করতে পারত । ১৯৪৬ সালে হাঙ্গেরীয় গণিতবিদ জন ভন নিউম্যান ( John Von Neuman ) সংরক্ষিত প্রােগ্রাম ধারণাটি উদ্ভাবন করেন । তিনিই প্রথম কম্পিউটারের “ তথ্য ও নির্দেশ ” সংরক্ষিত রাখার ব্যবস্থা করেন । তার এই ধারনার উপর ভিত্তি করে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মরিশ উইলকশ ( Maurice Wikes ) ১৯৪৬ সালে EDSAC ( Electronic Delay Storage Automatic Computer ) নামে সর্বপ্রথম স্বয়ংক্রিয় ইলেকট্রনিক্স ডিজিটাল কম্পিউটার তৈরি করেন ।ভন নিয়ম্যানের নীতিকে কাজে লাগিয়ে EDSAC তৈরির আগেই ENIAC এর নির্মাতা জন মউসলে ও জে . প্রেসপার একার্ট ENIAC নামে কম্পিউটার তৈরিতে নিয়ােজিত ছিলেন । এর মধ্যে তারা একটি কোম্পানী তৈরিতে ব্যস্ত ছিলেন যার কারণে কম্পিউটারটি তৈরি করতে দেরি হয় ।

১৯৫০ সালে তারা EDVAC ( Electronic Discrete Variable Automatic Computer ) তৈরি করেন । এরপর জন মউসলে ও জে . প্রেসপার একার্ট নিজেদের কোম্পানীতে ১৯৫১ সালের মার্চ মাসে UNIVAC – 1 ( Universal Automatic Computer ) তৈরি করেন । এটিই হল সর্বপ্রথম তৈরিকৃত বানিজ্যিক ইলেকট্রনিক কম্পিউটার । এতে ক্রিস্টাল ডায়ােড স্যুইচ ও ভ্যাকুয়েম টিউব সার্কিট ব্যবহার করা হয় । এটি এক সাথে পড়া , তথ্য লেখা ও গণনা করতে পারত । প্রথম UNIVAC – 1 টি সরবারাহ করা হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Bureau of Census অফিসে , দ্বিতীয়টি বিমান বাহিনীতে , তৃতীয়টি আর্মি ম্যাপ সার্ভিস অফিসে । ১৯৫৩ সালে আইবিএম IBM701 নামক একটি বানিজ্যিক কম্পিউটার তৈরি করে । এই সময়ে প্রােগ্রাম রচনা করা হতাে বাইনারি ভাষা ব্যবহার করে ।computer history in Bengali

১৯৪৮ সালে ট্রানজিষ্টর আবষ্কারের ফলে বালব এর পরিবর্তে ট্রানজিষ্টার ব্যবহার করা হয় । এটি ব্যবহারের ফলে কম্পিউটার ধীরে ধীরে আকারে ছােট হতে থাকে । এই কম্পিউটার গুলাে ছিল আগেরগুলাে থেকে উন্নত , দ্রুত গতিময় ও টেকসই । ১৯৬৪ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডাটমাউথের দু’জন অধ্যাপক J. G. Kemeny এবং Tomas Kurtz এরই মধ্যে বেসিক নামে একটি প্রােগ্রাম রচনা করেন । এ ভাষায় প্রােগ্রাম লেখা অত্যান্ত সহজ হয়ে পড়ে । যার কারণে এটি খুবই জনপ্রিয়তা পায় । ট্রানজিষ্টার আবিষ্কারের পরে আবিষ্কার হয় IC ( Integrated Circuit ) . সিলিকনের একটি ক্ষুদ্র অংশে একাধিক ট্রানজিষ্টার একত্র করে এটি তৈরি করা হয় । আইসি ব্যবহারের ফলে কম্পিউটারগুলা আকারের একদম ছােট হয়ে গেল , তার সাথে বেড়ে গেল গুণগত মান ও দ্রুততর হল কাজের গতি ।

কম্পিউটারের সবচেয়ে বড় সাফল্য আসে মাইক্রোপ্রসেসর আবিষ্কারের ফলে । ১৯৭১ সালে আমেরিকার ইন্টেল কোম্পানি সর্বপ্রথম মাইক্রোপ্রসেসর ( Microprocessor ) তৈরি করে । এটি এক বর্গ ইঞ্চি মাপের সিলিকন পাতের হাজার হাজার ট্রানজিষ্টারের একটি যন্ত্রাংশ । এর ফলে কম্পিউটার হয়ে যায় একটি টেলিভিশনের মতাে । এতে কম্পিউটারের দাম চলে আসে হাতের নাগালে , ব্যবহারের সুবিধা বেড়ে যায় ও কাজের ক্ষমতা বেড়ে হয় হাজার হাজার গুণ । এটি দিয়ে তৈরি কম্পিউটারই হল আজকের Personal Computer .

আমাদের পূর্বের পোস্ট গুলি পড়তে আপনি নিচের লিংক এ ক্লিক করুন:

যদি আপনার এই পোস্ট টি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন|এছাড়াও আপনাদের কোনো প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে কমেন্ট বক্স এ অবশ্যই জানাবেন।

1 thought on “Computer History in Bengali”

Leave a Comment

error: Content is protected !!